মির্যা কাদিয়ানীর বইতে বাইবেলের বক্তব্যকে বিকৃত করে উদ্ধৃত করার ডকুমেন্টারি প্রমাণ

মির্যা কাদিয়ানীর উদ্ধৃতি : তৌরাতে লিখা আছে, “নবুওয়তের মিথ্যা দাবিদার ক্রুশবিদ্ধ ও অভিশপ্ত হয় আর সত্য নবীদের মত আল্লাহর দিকে তার রাফা হয়না”—এটি বাইবেলের পুরাতন নিয়মের (২১:২৩) ঐ উক্তিতে ক্ষুনাক্ষরেও উল্লেখ নেই। বরং বাইবেলের সেই উক্তি অনুসারে যেটি বুঝা যাচ্ছে তা হল, মৃত্যুদণ্ড যেভাবেই হোক, ক্রুশে হতে হবে এটা আবশ্যক নয়; এমন যে কোনো ব্যক্তির মৃতদেহ, সে নবী কিবা গয়ের নবী যে কেউ হতে পারে, যদি কবর না দিয়ে সারা রাত ধরে গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয় তবে সে লোকটি ঈশ্বরের দ্বারা অভিশপ্ত বলে বিবেচিত হবে। বাইবেলের বক্তব্যটির প্রতিপাদ্য বিষয় হল “মৃতদেহ” গাছে ঝুলিয়ে রাখা।

  • বাইবেল পুরাতন নিয়ম (তৌরাত) এর ভাষ্যটি এই “তোমরা সারা রাত ধরে সেই মৃতদেহকে গাছে ঝুলিয়ে রেখো না কিন্তু নিশ্চিতভাবে সেই একই দিনে সেই ব্যক্তিকে কবর দিও। কেন? কারণ গাছে ঝোলানো সেই লোকটি ঈশ্বরের দ্বারা অভিশপ্ত। প্রভু তোমাদের ঈশ্বর, তোমাদের যে দেশ দিচ্ছেন সেই দেশকে তোমরা কখনই অশুচি করবে না।” (বাইবেল পুরাতন নিয়ম, দ্বিতীয় বিবরণ 21:23)।

এখন কাদিয়ানীদের নিকট বাইবেলের এ বক্তব্য গ্রহণযোগ্য হলে তখন তো তাদেরকেও খ্রিস্টানদের ন্যায় বিশ্বাস করতে হয় যে, সেই ক্রুশীয় ঘটনাকালেই ঈসা (আ:) মৃত্যুবরণ করেছিলেন। এমতাবস্থায় কাদিয়ানীদের জন্য একথা দাবী করার আর কোনো সুযোগ থাকেনি যে, তিনি (আ:) সেই সময় জেরুজালেম ছেড়ে গোপনে কাশ্মীর পালিয়ে গিয়েছিলেন!!

আফসোস! আফসোস!!

“বাইবেল” এর পুরাতন নিয়ম এর বক্তব্যটির কত জঘন্য বিকৃতি ঘটিয়ে মির্যা কাদিয়ানী সাহেব গোটা দুনিয়াকে কত হীন কায়দায়, কত সূক্ষ্মভাবে ধোকা দিয়ে ললিপপ খাওয়াতে চেয়েছিলেন তা নিচের স্ক্যানকপি থেকে দেখুন। নিচে মির্যার লেখিত “হামামাতুল বুশরা” (বাংলা অনূদিত) পৃষ্ঠা নং ৬৩ এর স্ক্রিনশট (ডানে) এবং খ্রিস্টানদের বাইবেল এর পুরাতন নিয়ম তথা তৌরাতের স্ক্যানকপি (বামে) তুলে ধরলাম। যাদের সত্য গ্রহণ করার সদিচ্ছা রয়েছে তারা নিশ্চয়ই এই নিকৃষ্ট মিথ্যাবাদী থেকে জান ছুটাতে আজই সিদ্ধান্ত নেবেন!!

লিখক শিক্ষাবিদ ও গবেষক
প্রিন্সিপাল নূরুন্নবী এম.এ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here