কাদিয়ানীদের কিভাবে বিশ্বাস করবেন? এরা গিরগিটির মতো প্রতি ক্ষণে রঙ বদলায়! এদের লিফলেট আর প্রচারপত্রগুলো দেখলে মনে হবে যে, এরা শুধুই ইমাম মাহদী হিসেবে মির্যা কাদিয়ানীকে মান্য করার কথা বলছে। এদের দাবী হল, এই একটা মাত্র কনসেপ্ট ছাড়া মুসলমানদের সাথে নাকি এদের আর কোনো বিরোধ নেই! আহা! কত নিকৃষ্ট ধোকা আর মিথ্যাচার!!!

এখানে এই যে দেখতে পাচ্ছেন, তারাই বলছে, হযরত মুহাম্মদ সাঃ শেষনবী নন। নাউযুবিল্লাহ।

এর মানে হল, এরা মুহাম্মদ সাঃ -কে বিনা ব্যতিক্রমে “শেষনবী” বিশ্বাস করেনা। অথচ হাদীস শরীফে “লা নাবিয়্যা বা’দী” বলা হয়েছে। যেখানে “লা” শব্দটি ‘লি নাফিয়ে আম’ অর্থাৎ বিনা ব্যতিক্রমে অর্থ নির্দেশকারী ‘লা‘। হুবহু এই ‘লা‘ শব্দটি কলেমার মধ্যেও রয়েছে। ফলে ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু’ অর্থ দাঁড়ায় — বিনা ব্যতিক্রমে আল্লাহই একমাত্র উপাস্য। ফলে এখানে তথাকথিত জিল্লি বা বুরুজি উপাস্যের দ্বিতীয় কোনো কনসেপ্ট নির্দেশ করার যেমন সুযোগ নেই তেমনি ‘লা নাবিয়্যা বা’দী (আমার পর আর কোনো নবী নেই – সহীহ বুখারী)’র কারণেও দ্বিতীয় আর কোনো জিল্লি বা বুরুজি টাইপের নবীর জন্ম হওয়ারও সুযোগ নেই বলে সাব্যস্ত হল।

তাহলে এখন প্রশ্ন হল, খতমে নবুওয়ত পরিপন্থী বিশ্বাস যাদের তারা কিভাবে নিজেদের “মুসলিম” দাবী করতে পারে?

  • কাদিয়ানীদের দৃষ্টিতে ‘খতমে নবুওয়ত’ এর ব্যাখ্যা কীরকম তা জানতে এখানে ক্লিক করুন
  • স্ক্রিনশট
কাদিয়ানীদের উম্মতিনবী বইয়ের স্ক্রিনশট

লিখক, শিক্ষাবিদ ও গবেষক

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here