মির্যা কাদিয়ানীর একমুখে কত কথা! একবার বলল, ঈসা (আ.)-এর কবর বায়তুল মুকাদ্দাসে, আবার গ্যালিলে, আবার তিব্বতে আবার কিনা কাশ্মীরের শ্রীনগরে!

এখন এমন ব্যক্তিও কী করে আপনা দাবীতে সত্য হন?

মির্যা কাদিয়ানীর বইতে জীবিত ঈসা (আ.)-এর ‘কবরস্থান’ সম্পর্কে চার ধরণের বিভ্রান্তিকর তথ্য। নিচে সংক্ষেপে তুলে ধরছি,
১। ‘সিরিয়া’ এর অন্যতম একটি জনপদ গ্যালীলে। (রূহানী খাযায়েন খন্ড নং ৩ পৃষ্ঠা নং ৩৫৩)।
২। ‘ফিলিস্তিন’ এর বায়তুল মুকাদ্দাসের আঙ্গিনায়। (রূহানী খাযায়েন খন্ড নং ৮ পৃষ্ঠা নং ২৯৬-৩০০; টিকা দ্রষ্টব্য)।
৩। ‘কাশ্মীরের’ আশপাশে। (রূহানী খাযায়েন খন্ড নং ১০ পৃষ্ঠা নং ৩০২)।
৪। কাশ্মীরের শ্রীনগরের ‘খান-ইয়ার মহল্লা’তে। (রূহানী খাযায়েন খন্ড নং ১৪ পৃষ্ঠা নং ১৭২)। অত্র বিষয়ে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন।

ক্রমানুসারে প্রামাণ্য স্ক্যানকপি নিম্নরূপ :-

শেষকথা : মির্যা কাদিয়ানী লিখেছেন: মিথ্যাবাদীর কথায় অবশ্যই স্ববিরোধীতা হয়ে থাকে। (রূহানী খাযায়েন: ২১/২৭৫)। অতএব এবার মির্যা কাদিয়ানী তারই স্ববিরোধী কথার কারণে কী সাব্যস্ত হলেন একটু ভেবে দেখবেন কি? এমন একজন মিথ্যাবাদীকে দুনিয়ার সমস্ত মুসলমান কিজন্য ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছেন তা এবার নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন। আল্লাহ আমাদের ঈমানকে রক্ষা করুন। আমীন।

লিখক, প্রিন্সিপাল নূরুন্নবী

Previous articleমির্যার স্ববিরোধীতা-১৪
Next articleমির্যার স্ববিরোধীতা-১৬
প্রিয় পাঠকবৃন্দ! এটি সম্পূর্ণ দ্বীনি ও অলাভজনক একটি ওয়েবসাইট। প্রতি বছর এটির ডোমেইন ও হোস্টিং ফি হিসেবে আমাকে এর ব্যয় বহন করতে হচ্ছে। যদি উক্ত ব্যয় বহন করতে অপারগ হই তাহলে এই সাইটটি নিশ্চিত বন্ধ হয়ে যাবে। সেহেতু আপনাদের সবার নিকট আবেদন থাকবে যে, আপনারা সাইটটির উক্ত ব্যয় বহনে এতে বিজ্ঞাপন দিতে বিভিন্ন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে উৎসাহিত করবেন এবং নিজেরাও সহযোগিতায় এগিয়ে আসবেন। বিনীত এডমিন! বিকাশ : ০১৬২৯-৯৪১৭৭৩ (পার্সোনাল)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here